কেন্দ্রীয় রাশিয়াতে অস্বাভাবিক গরমে, যা প্রায় এক মাসেরও বেশি সময় ধরে চলছে, তাতে দেশের স্বাভাবিক বরফ গলা জলে ভেজা মাটি শুকিয়ে ফেটে আছে, যেন বিষুব রেখার কাছের কোন অঞ্চলের ছবি. দেশের প্রচুর অঞ্চল পর্ণমোচী বৃক্ষের অরণ্যে আবৃত, আর সেখানে বহু বছরের জমা পচা পাতার রাশি শুকিয়ে গিয়ে সূর্যের আলোতে মিথেন গ্যাসের কারণে জ্বলে উঠেছে. সেই আগুণ ছড়িয়েছে বন থেকে লোকালয়ে, মাটি থেকে গাছের মাথায়. ধোঁয়াতে ঢেকে গিয়েছে শহর, জনপদ. বহু গ্রাম জ্বলে গিয়েছে. বহু মানুষই ঘরহারা, চলছে আগুনের মোকাবিলা, বৃষ্টির পূর্ব্বাভাষ এখনও নেই.  ছবিতে তারই একটা বিবরণ দেওয়া হল.-    রাশিয়াতে দাবানলে পুড়ে নিহতের সংখ্যা পঞ্চাশ পার হয়েছে, দেশের চোদ্দটি অঞ্চলে জরুরী অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে.-    গতকাল এক দিনে ২৬৫ টি জনপদ রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে, বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয় সেখানে আগুনের মোকাবিলা করার জন্য আরও বেশী করে যন্ত্র ও কর্মী পাঠিয়েছে.-    রাশিয়ার প্রদেশ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে দেওয়া তথ্যে বলা হয়েছে যে, রাশিয়াতে প্রায় দুই হাজার বাড়ী সম্পূর্ণ ভাবে পুড়ে গিয়েছে, গৃহহীণ লোকের সংখ্যা তিন হাজারের কাছাকাছি.-    নতুন করে ঘরবাড়ী তৈরীর জন্য ৪, ৬ বিলিয়ন রুবল বরাদ্দ করা হয়েছে, কিন্তু তার মধ্যে বর্তমানে আপাততঃ ৩২১ মিলিয়ন দেওয়া হয়েছে.-    দেশের চোদ্দটি অঞ্চলেই ঘরবাড়ী পুড়ে গিয়েছে, সবচেয়ে বেশী পুড়েছে নিঝেগোরদ, ভরোনেঝ ও রিয়াজান প্রদেশে.-    রাজধানী মস্কোর আকাশ দাবানলের ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন, নিঃশ্বাস নেওয়া কঠিন হয়েছে ও কয়েক শো মিটারের বেশী দূর চোখে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না.-    এর আগে রাশিয়ার অর্থোডক্স চার্চের প্রধান কিরিল দিভিয়েভ নামের জায়গায় প্রার্থনা করতে গিয়ে সকলকে একসাথে ভগবানের কাছে আমাদের মৃতপ্রায় জমিতে বৃষ্টি দাও বলে প্রার্থনা করতে বলেছেন আর সমস্ত গির্জার পোপ দের সারাদিন ধরে প্রার্থনা চালিয়ে যেতে বলেছেন.-    পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা বলেছেন রাশিয়ার বনাঞ্চলের আবার পুরনো অবস্থায় ফিরতে ১০ থেকে ১০০ বছর লাগবে.