মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারী প্রতিনিধিরা একাধিকবার বলেছেন যে, ডিসেম্বরে রাষ্ট্রীয় কুদেতা-র প্রস্তুতির অভিযোগে পিয়ংইয়ংয়ের শাসনে দ্বিতীয় ব্যক্তি এবং বর্তমান নেতার মামা চান সোন থেক-এর মৃত্যুদণ্ড – উত্তর কোরিয়ার নেতৃবৃন্দে অস্থিতিশীলতার প্রমাণ দেয়. এমন পরিস্থিতিতে কিম চেন ঈন প্ররোচনা, সেই সঙ্গে সামরিক প্ররোচনা চালাতে পারেন, আভ্যন্তরীন সমস্যা থেকে মনোযোগ বিক্ষিপ্ত করা যায় এবং নিজের চারপাশে সেনাবাহিনী ও জনসাধারণকে ঐক্যবদ্ধ করা যায়.