এর প্রাক্কালে দলিলপত্র গ্রহণের প্রথম দিন নয়টি রাজনৈতিক পার্টির প্রতিনিধিরা কমিশনের এলাকায় ঢুকতে এবং দলিলপত্র জমা দিতে সক্ষম হয়েছেন. বাকিরা নাম রেজিস্ট্রি করিয়েছে কাছের পুলিশ থানায়. যারা নির্বাচনী অভিযানে অংশগ্রহণের জন্য দলিলপত্র জমা দিয়েছে, তাদের মধ্যে আছে প্রাক্তন ক্ষমতাসীন “ফিউ থাই” পার্টির প্রতিনিধিরা. তার তালিকায় এক নম্বর স্থানে আছেন দেশের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকারিণী ইইঙ্গলাক শিনাওয়াত্রা. প্রধান বিরোধী ডেমোক্রেটিক পার্টি নির্বাচন বয়কট করার অভিপ্রায়ের কথা জানিয়েছে. তার সক্রিয় কর্মীরা, যারা এখন ব্যাঙ্ককে রাস্তার মিছিলের নেতৃত্ব করছে, জোর দিচ্ছে, যাতে দেশে প্রথমে রাজনৈতিক ব্যবস্থার সংস্কার সাধন করা হয়, আর শুধু তার পরই – পার্লামেন্টারী নির্বাচন আয়োজন করা হয়.