তাছাড়া. ইয়ানুকোভিচ আশ্বাস দিয়েছেন যে, কর্তৃপক্ষ শান্তিপূর্ণ মিছিল করায় নাগরিকদের অধিকার সুনিশ্চিত করার জন্য, এবং তাছাড়া কিয়েভের স্বাধীনতা স্কোয়ারে ৩০শে নভেম্বরের ঘটনাবলির, যখন ইউরো-অঙ্গীভূতীর পক্ষসমর্থকদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য বল প্রয়োগ করা হয়েছিল, বিশদ তদন্ত পরিচালনার জন্য সম্ভাব্য সবকিছুই করবে. সিনেটরদের সাথে সাক্ষাত্ হয়েছিল রবিবার রাতে. আর তার কিছু আগে ম্যাককেইন ও মার্ফি ময়দানে বক্তৃতা দেন এবং সভায় যোগদানকারীদের প্রতি সমর্থন জানান. এদিকে পূর্ব ইউরোপীয় একটি দেশের কূটনীতিজ্ঞ বলেন যে, ইউক্রেনকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি আলোচিত হবে ১৯-২০শে ডিসেম্বর ইউরোসঙ্ঘের শীর্ষ সাক্ষাতে. এ বিবৃতি দেওয়া হয়েছে বিগতপ্রায় বছরের ফলাফলের প্রতি উত্সর্গীত পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাক্ষাতে, যা সোমবার শুরু হচ্ছে.