এই অধিবেশনের বিষয় নিয়ে বলতে গিয়ে তিনি নির্দেশ করেছেন যে, “এখানে আলোচনার একটি কেন্দ্রীয় বিষয় ছিল সিরিয়ার পরিস্থিতি”. জাখারভার কথামতো, মুসলমান রাষ্ট্রগুলো নানাভাবে এই দেশে যা ঘটছে, তার মূল্যায়ণ করেছে, আর তাদের মূল্যায়ণের পার্থক্য এই অধিবেশনের সিরিয়া সংক্রান্ত সিদ্ধান্তে প্রতিফলিত হয়েছে. সিরিয়া ছাড়াও মন্ত্রীরা এখানে “আফ্রিকা মহাদেশের পরিস্থিতির প্রতিও গভীর মনোযোগ দিয়েছেন আর সাহারা- সাহেল এলাকায় সন্ত্রাসবাদের কাজকর্মের প্রসারকে কড়া ভাষায় সমালোচনা করেছেন আর ঘোষণা করেছেন যে, তারা সকলেই এই হুমকির মোকাবিলা করার জন্য আন্তর্জাতিক শক্তি প্রয়োগকে সমর্থন করবেন”. রাশিয়া এই অধিবেশনে পর্যবেক্ষকের ভূমিকায় উপস্থিত ছিল.