এ সম্বন্ধে মার্কিনী সিনেটে বলেছেন আফগানিস্তান ও পাকিস্তান সম্পর্কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ প্রতিনিধি জেমস ডবিনস. তাঁর কথায়, কার্জাইয়ের আসন্ন ভারত সফর খুবই উপকারী হতে পারে প্রভাব বিস্তারের দৃষ্টিভঙ্গী থেকে, কারণ আফগানিস্তানের রাষ্ট্রপতি ভারত সরকারের প্রতি শ্রদ্ধা পোষণ করেন এবং তার সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখছেন. মার্কিনী কূটনীতিজ্ঞ উল্লেখ করেন যে, ইরান ছাড়া সমস্ত আঞ্চলিক শক্তি এই দ্বিপাক্ষিক চুক্তি সমর্থন করে. এ চুক্তি স্বাক্ষরের পক্ষে মত প্রকাশ করেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন, চীনের সভাপতি সি জিনপিন, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ. কার্জাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে আগে সর্বসম্মত চুক্তি স্বাক্ষর করতে অস্বীকার করছেন, কারণ মনে করেন যে, এপ্রিল মাসের নির্বাচনের পরে রাষ্ট্রপতি পদে তাঁর জায়গায় যিনি আসবেন তাঁর এ চুক্তি স্বাক্ষর করা উচিত্. ২০১৪ সালে ন্যাটো জোটের বাহিনীর আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়া উচিত্. দ্বিপাক্ষিক মার্কিনী-আফগান চুক্তি অনুযায়ী মার্কিনী বাহিনীর একাংশ দেশে থাকবে নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা এবং স্থানীয় বাহিনীকে তালিম দেওয়ার জন্য.