পুতিনের কথামতো, বাস্তবেই বীরের উপযুক্ত বলে মনে করা হয়ে থাকে ১৯৪১ থেকে ১৯৪৫ সালের পিতৃভূমি রক্ষার যুদ্ধের ভেটেরানদের. “আমাদের পিতা ও পিতামহদের বিজয়, সব সময়েই আমাদের জন্য এক বিবেক নির্দেশিত লক্ষ্য হয়ে থাকবে, সত্যিকারের দেশপ্রেমের এক সবচেয়ে উঁচু মানের প্রকাশ”, বলেছেন রাষ্ট্রপতি. ক্রেমলিনে এই জাঁক জমক পূর্ণ অনুষ্ঠানে তিনশরও বেশী মানুষ এসেছিলেন – তাঁদের মধ্যে রাশিয়া বীর ও সোভিয়েত দেশের বীর, পবিত্র গিওর্গি (সেন্ট জর্জ) ও খ্যাতির পদক পাওয়া লোকরা.