তিনি মনে করিয়ে দেন যে, দেশের পার্লামেন্ট ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে এবং আহ্বান জানান প্রতিবাদ আন্দোলন বন্ধ করতে এবং নির্বাচনে অংশ নিতে. প্রায় ৩ হাজার প্রতিবাদকারী গত রাতে সরকারের ভবনের কাছে, যেখানে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর অবস্থিত, তাঁবু খাটিয়ে রয়েছে. তারা ভবনের ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করছে না, যা রক্ষা করছে পুলিশ এবং সৈনিকরা. আন্দোলনকারীদের নেতা সুতেপ তাউগসুবান নিজের তরফ থেকে বলেছেন যে, প্রধানমন্ত্রীর হাতে ২৪ ঘন্টা রয়েছে পদত্যাগ করার জন্য. আগে প্রধানমন্ত্রী বলেন যে, প্রধানমন্ত্রীর পদে থাকবেন নির্বাচন পর্যন্ত, যা নির্ধারিত হয়েছে ২০১৪ সালের ২রা ফেব্রুয়ারী. থাইল্যান্ডে সরকারবিরোধী আন্দোলন চলছে প্রায় দু সপ্তাহ ধরে. আন্দোলনকারীরা মত প্রকাশ করছে চিনাওয়াত সরকারের বিরুদ্ধে, যিনি ২০০৬ সালে সামরিক কুদেতার পরে দেশ ত্যাগ করা প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী তাকসিন চিনাওয়াতের ভগ্নী. প্রতিবাদকারীদের মতে, চিনাওয়াত নিজের ভাইয়ের স্বার্থের প্রতিনিধিত্ব করছেন এবং তিনি ভাইয়ের হাতের পুতুল.