এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে মঙ্গলবার প্রকাশিত পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সরকারী খবরে. এটি ছিল পাকিস্তানের তেল ও প্রাকৃতিক সম্পদ সংক্রান্ত মন্ত্রী শাহিদ আব্বাস এবং ইরানের তৈলমন্ত্রী বিজান নামদার জানহেনেখ-এর গতকালের সাক্ষাতের একটি গুরুত্বপূর্ণ ফল, উল্লেখ করা হয়েছে বিবৃতিতে. পাকিস্তানের জ্বালানীর অভাব রয়েছে এবং তা পাওয়ার নান ধরণ বিবেচনা করছে. তবুও, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তীব্র সমালোচনা করেছে ইরান-পাকিস্তান প্রকল্পের এবং ইসলামাবাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করার ভয় দেখিয়েছে. আশা করা হচ্ছে যে, ইরানের সাথে চুক্তি অনুযায়ী পাকিস্তানে দিনে প্রায় ২ কোটি ১৫ লক্ষ ঘন-মিটার গ্যাস সরবরাহ করবে ইরান. পাইপলাইনের নির্মাণ শেষ হওয়ার মেয়াদ সঠিকভাবে জানানো হয় নি.