রবিবার মস্কো সময় বিকেল চারটে বেজে ১২ মিনিটে বৈকনুর মহাকাশ উড়ান কেন্দ্র থেকে এই যাত্রা শুরু হয়েছে.

মহাকাশ উপগ্রহ ইমারস্যাট-৫এফ১ – প্রথম নতুন প্রজন্মের যন্ত্র. মহাকাশে পৃথিবীর সাপেক্ষে স্থায়ী কক্ষপথে তিনটি এই ধরনের উপগ্রহের গ্রুপ ও ছটি মাটিতে থাকা স্টেশন ইমারস্যাট স্টেশন দিয়ে এই প্রথম বিশ্বজোড়া দ্রুত গতি সম্পন্ন ওয়াইড লেন্থ মোবাইল উপগ্রহ মারফত যোগাযোগ ব্যবস্থা Xpress-GX তৈরী করা হচ্ছে. প্রথম উপগ্রহ ইউরোপ, নিকটপ্রাচ্য, আফ্রিকা ও এশিয়াতে পরিষেবা দেবে. অন্য দুটি কৃত্রিম উপগ্রহ দিয়ে আমেরিকা (ইমারস্যাট-৫এফ২ ও ইমারস্যাট ৫এফ৩) আমেরিকা ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকাকে পরিষেবা দেওয়া হবে. এই বাকী দুটি ছয় মাস পরপর ২০১৪ সালের দ্বিতীয় ও চতুর্থ ত্রৈমাসিকে পাঠানো হবে. ২০১৪ সালের শেষে এই ধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পূর্ণ ভাবে তৈরী হয়ে যাবে.

এই ধরনের পরিষেবা প্রয়োজন পড়তে পারে সেই সমস্ত ক্ষেত্রেও, যখন পৃথিবী পৃষ্ঠে থাকা সমস্ত ধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা পরিষেবা দিতে অসমর্থ হবে, তাই আশা করা হচ্ছে যে, প্রশাসনিক প্রয়োজনে রাষ্ট্রদের মধ্যে এই ধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা থাকবে. এই ধরনের উপগ্রহ ১৫ বছর ধরে পরিষেবা দেবে ও জ্বালানী ভর্তি অবস্থায় এর ওজন ৬০৭০ কিলোগ্রাম.