এই প্রসঙ্গে সিওলের পক্ষ থেকে করা ঘোষণাতে বিশেষ করে বলা হয়েছে যে, ১৫ই ডিসেম্বর থেকে কার্যকরী হওয়া এলাকা তৈরীর সময়ে দক্ষিণ কোরিয়া প্রতিবেশী দেশগুলোর সার্বভৌমত্বে হস্তক্ষেপ করে নি. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরে নিজেদের পক্ষ থেকে বিশেষ করে উল্লেখ করা হয়েছে যে, সিওল আগে ওয়াশিংটনের সঙ্গে নিজেদের আকাশ সীমা প্রসারের বিষয়ে আলোচনা করেছে. এই সিদ্ধান্ত চিনের পূর্ব চিন সাগরের উপরে নিজেদের দেশের নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্য আকাশ সীমা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত প্রকাশের পরেই করা হয়েছে. তাতে জাপানের সেনকাকু দ্বীপপূঞ্জকেও যোগ করা হয়েছে.