এ সম্বন্ধে রাশিয়ার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন. একই সঙ্গে, তাঁর কথায়, একসারি বৈষয়িক ও বিধানিক সমস্যা রয়ে গিয়েছে. রাষ্ট্রসঙ্ঘ ও রাসায়নিক অস্ত্র নিষেধ সংস্থার যৌথ মিশনের মাসিক রিপোর্ট আলোচনার সময় কূটনীতিজ্ঞ বলেন যে, এ সব সমস্যা লজিস্টিক চরিত্রের, বৈষয়িক-প্রযুক্তিগত সুনিশ্চিতির এবং কয়েকটি বিধানিক সমস্যাও রয়েছে. তাছাড়া উদ্বেগজনক পরিস্থিতি রয়েছে নিরাপত্তার ক্ষেত্রে, বিশেষ করে তা জঙ্গীদের একদল জঙ্গীর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য, যারা “এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় সরে সরে যাচ্ছে, এবং বোঝা যাচ্ছে না তারা কার অধীন ও তাদের উপর কার প্রভাব রয়েছে”, বলেন চুরকিন. তিনি রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের দেশগুলিকে আহ্বান জানিয়েছেন নিজেদের লাইনের মারফত জঙ্গীদের উপর যথাযথ প্রভাব বিস্তার করতে.