এ সম্বন্ধে বুধবার জানিয়েছে “টাইমস অফ ইন্ডিয়া” সংবাদপত্র. তার তথ্য অনুযায়ী, এ পরীক্ষার সময়েই “কে-১৫ সাগরিকা” মার্কা ব্যালিস্টিক রকেট ক্ষেপণ করা হবে, যা পারমাণবিক ওয়ারহেড ৭০০ কিলোমিটার দূরত্ব পর্যন্ত বহণ করতে পারে. আগস্ট মাসে সাবমেরিনের পারমাণবিক রিয়াক্টর সফলভাবে চালু করা হয়েছিল. আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে তা পূর্ণ ক্ষমতায় কাজ শুরু করবে. এ ডিজাইনের সাবমেরিন “কে-১৫ সাগরিকা” মার্কা মাঝারী পাল্লার ১২টি ব্যালিস্টিক রকেট বহণ করে. ভবিষ্যতে এই সাবমেরিনগুলিকে ৩৫০০ কিলোমিটার পাল্লার “অগ্নি-৩” রকেটে সজ্জিত করার পরিকল্পনা আছে. আগে জানানো হয়েছিল যে, ভারতের নৌবাহিনীর অধিনায়কমন্ডলী এ শ্রেণীর আরও দুটি সাবমেরিন ফরমাশ করার “সবুজ সঙ্কেত” পেয়েছে. ভবিষ্যতে তার সংখ্যা পাঁচটি পর্যন্ত বাড়ানোর সম্ভাবনা বিবেচনা করা হচ্ছে.