সফর তিন থেকে ছয়ই ডিসেম্বর অবধি হবে. সেখানে গণ প্রজাতন্ত্রী চিনের চেয়ারম্যান সিন জিনপিনের সঙ্গে একান্ত ভাবে মুখোমুখি ও রাষ্ট্রীয় পারিষদদের উপস্থিতিতে সাক্ষাত্কার ছাড়াও সেই দেশের পার্লামেন্ট ও মন্ত্রীসভার সদস্যদের সঙ্গেও কথাবার্তা হবে. মনে করা হয়েছে এই সফরের ফলে স্ট্র্যাটেজিক ভাবে সহকর্মী দেশ চিনের সঙ্গে অনেকগুলো দলিল স্বাক্ষরিত হবে, যা পারস্পরিক ভাবে সহযোগিতা বৃদ্ধির জন্যই করা হতে চলেছে. এখানে ইয়ানুকোভিচ এক ইউক্রেন- চিন ব্যবসায়িক সম্মেলনেও অংশ নিয়ে বক্তৃতা দেবেন.