তা ঘটেছে, যখন দেশের নেতৃবৃন্দ তাদের ব্যাঙ্ককে সরকারের ভবনের ভূভাগে প্রবেশের অনুমতি দেন, জানিয়েছে স্থানীয় প্রচার মাধ্যম. সরকারবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম নেতা সতিত উয়োঙ্গনোঙ্গতোই বলেন, “দীর্ঘ সংগ্রাম ও প্রতিবাদের পরে আমরা জয়লাভ করেছি”. মিছিলকারীরাও পুলিশের সদর দপ্তরে ঢোকার সুযোগ পেয়েছে.মঙ্গলবার থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী ইইঙ্গলাক চিনাওয়াত পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন মিছিলকারীদের সরকারের ভবনে প্রবেশ করতে দেওয়ার, যা তারা দু দিন ধরে আক্রমণ করার চেষ্টা করছিল. প্রধানমন্ত্রী সম্ভাব্য ভাঙচুর এবং রাষ্ট্রীয় সম্পত্তির ক্ষতির দায়িত্ব সম্বন্ধে বিরোধীপক্ষকে সতর্ক করে দেন.