প্রথম দিন ন্যাটো জোটের সদস্য ২৮টি দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা শীর্ষ সাক্ষাতের উদ্দেশ্য এবং আলোচ্য সূচি আলোচনা করবেন, যা ২০১৪ সালের ৪-৫ সেপ্টেম্বর গ্রেট-বৃটেনের সাউথ ওয়েলসে হবে বলে নির্ধারিত হয়েছে. ঘোষণা করা হয়েছে যে, শীর্ষ সাক্ষাত্ উত্সর্গীত হবে আফগানিস্তানে সামরিক অভিযান শেষ হওয়া, শরিকদের সাথে ন্যাটো জোটের সম্পর্ক, জোটের সামরিক ক্ষমতা সুদৃঢ় করা ও আধুনিকীকরণের প্রতি. সের্গেই লাভরোভের অংশগ্রহণে রাশিয়া-ন্যাটো পরিষদের মন্ত্রী-পর্যায়ে সাক্ষাত্ হবে বুধবার. সোমবার ন্যাটো জোটের এক উচ্চপদস্থ আমলা ব্রিফিংয়ে জানিয়েছেন যে, কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এমন সব বিষয়, যা বহুকাল ধরে রাশিয়ার সাথে সম্পর্কের আলোচ্য সূচিতে রয়েছে. এর মধ্যে আছে সিরিয়ায় পরিস্থিতি এবং সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র ভাণ্ডার ধ্বংস করার কর্মসূচি, আফগানিস্তানে ন্যাটো জোটের সামরিক উপস্থিতির আসন্ন হ্রাস উপলক্ষে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি, সন্ত্রাসবাদ ও নার্কোটিকের চোরাচালানের বিরুদ্ধে সংগ্রাম.