তিনি আরও উল্লেখ করেন যে, ২২শে জানুয়ারীর জন্য নির্ধারিত সম্মেলনে কোয়ালিশনের অংশগ্রহণের উদ্দেশ্য হল অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করা, বৃহস্পতিবার জানিয়েছে “অ্যাসোশিয়েটেড প্রেস” সংবাদ এজেন্সি. কোয়ালিশন গত মঙ্গলবার আবার ঘোষণা করেছে যে, সিরিয়ার ভবিষ্যত্ অন্তর্বর্তী সরকারে রাষ্ট্রপতি বাশার আসদের স্থান হতে পারে না. এর উপর তাছাড়া জোর দিচ্ছে পশ্চিমী দেশগুলি, যারা কোয়ালিশনকে সমর্থন করছে, বিশেষ করে. ফ্রান্স এবং গ্রেট-বৃটেন. সিরিয়ার কর্তৃপক্ষও বুধবার সরকারীভাবে জানিয়েছে সম্মেলনে অংশগ্রহণের কথা. দামাস্কাসের প্রতিনিধিদল সিরিয়ার জনগণের দাবি পেশ করবে, সর্বপ্রথমে – সন্ত্রাসবাদের উচ্ছেদ, বলা হয়েছে সিরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে. মন্ত্রণালয় তাছাড়া সতর্ক করে দিয়েছে যে, সিরিয়ার কর্তৃপক্ষ রাষ্ট্রপতি আসদের পদত্যাগ সম্পর্কে কিছু পশ্চিমী দেশের দাবিতে চূড়ান্ত অসম্মত. সিরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জোর দিয়ে বলা হয়েছে, “উপনিবেশবাদের যুগ শেষ হয়েছে. সিরিয়ার সরকারী প্রতিনিধিদল শাসন ক্ষমতা ছেড়ে দেওয়ার জন্য জেনেভায় যাচ্ছে না”.