গণবিক্ষোভে অংশ নেয়া কয়েক লক্ষ আন্দোলনকারীরা ইংলাকের সরকারের পদত্যাগের দাবী জানাচ্ছেন। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, ইংলাক তাঁর ভাই থাকসিন সিনাওয়াত্রার কথায় দেশ পরিচালনা করছেন। ২০০৬ সালে এক অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত হন থাকসিন। বিরোধীদলের পক্ষ থেকে ইংলাকের মন্ত্রিপরিষদকে “থাকসিনিজম” বলে অভিহিত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, থাই সরকার রাজনৈতিক স্বচ্ছতা সংক্রান্ত একটি বিতর্কিত বিল পাসের পর দেশজুড়ে এই আন্দোলনের সূচনা হয় । গত রোববার থেকে রাজধানীতে লাখো বিক্ষোভকারী জমা হয়ে সরকারের পদত্যাগের দাবিতে এই আন্দোলন শুরু করে। এই আইনের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী থাকসিন সিনাওয়াত্রা পুনরায় সরকারের দায়িত্বগ্রহণের সুযোগ পাবেন বলে বিরোধীদলের পক্ষ থেকে আশংকা করা হচ্ছে।

পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজধানী ব্যাংকক ও আশপাশের এলাকায় জরুরি অবস্থা জারি করেছেন প্রধানমন্ত্রী ইংলাক।