অংশতঃ, তাদের উচিত্ হবে যুদ্ধ বিগ্রহ বন্ধ করা, নিজেদের এলাকায় মানবিক সহায়তা কর্মীদের ঢুকতে দেওয়া, বন্দীদের মুক্ত করা, উদ্বাস্তু ও স্থানান্তরিত মানুষদের নিজেদের এলাকায় ফিরে আসতে দেওয়া, যোগ করেছেন মহাসচিব.

বান কী মুন মন্তব্য করেছেন যে, জেনেভায় সম্মেলন – একটা বাস্তব সুযোগ, যাতে সিরিয়াতে বিরোধের অবসান হয়. এর আগে সোমবারে রাষ্ট্রসঙ্ঘে জানানো হয়েছে যে সিরিয়া নিয়ে জেনেভার দ্বিতীয় সম্মেলন আগামী ২০১৪ সালের ২২শে জানুয়ারী অনুষ্ঠিত হতে চলেছে.