এ বছরের শেষ অবধি যদি তা না করা হয়, তাহলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদেশগুলির জন্য ২০১৪ সালের পরে আফগানিস্তানে সামরিক উপস্থিতির পরিকল্পনা তৈরি করায় সমস্যা দেখা দেবে, বলেছেন হোয়াইট হাউজের প্রতিনিধি জোশুয়া এর্নস্ট ওয়াশিংটনে. আগে আফগানিস্তানের রাষ্ট্রপতি হামিদ কার্জাই বলেছেন যে, যদিও তিনি এ চুক্তি সমর্থন করেন, তবুও মনে করেন যে, তা স্বাক্ষরিত হওয়া উচিত্ ২০১৪ সালের এপ্রিলে আফগানিস্তানে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের পরেই. তিনি এ দেরির কারণ ব্যাখ্যা করেন এ ভাবে যে, এ সময়ের মধ্যে কাবুল বিশ্বস্ত হবে আফগানিস্তানে নিরাপত্তা বজায় রাখার ক্ষেত্রে সাহায্য করায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাস্তব প্রস্তুতি সম্পর্কে. মার্কিনী পররাষ্ট্র সচিব জন কেরি গত বৃহস্পতিবার জানান যে, ওয়াশিংটন ও কাবুল চুক্তির বয়ান সর্বসম্মত করতে সক্ষম হয়েছে, যা ২০১৪ সালের পরে আফগানিস্তানে মার্কিনী সামরিক উপস্থিতির শর্ত নিরূপণ করবে.