শুক্রবার দুপুরে প্রায় ২টার সময় অন্ধ্র প্রদেশের উপকূলবর্তী এলাকায় আসা এ ঝড়ের কেন্দ্রস্থলে বাতাসের গতি ছিল ঘন্টায় ১২০ কিলোমিটার. এ দুর্যোগের জন্য কর্তৃপক্ষ ২৫ হাজারেরও বেশি লোককে অপসারণ করতে বাধ্য হয়েছিল. জেলেদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ঝড় শেষ না হওয়া পর্যন্ত সমুদ্রে না যেতে. এ ভয় রয়েছে যে, দেড় মিটারের বেশি উঁচু ঢেউ উপকূলের কিছু অংশ ডুবিয়ে দেবে. তবুও আবহবিদরা বলেছে যে, এ ঝড় ১২ই অক্টোবর অন্ধ্র প্রদেশ ও উড়িষ্যায় আসা “ফাইলিন” ঝড়ের চেয়ে, যাতে ৪০ জনের বেশি লোক মারা গিয়েছিল, কিছুটা দুর্বল. আগের ঐ “ফাইলিন” ঝড় উপকূলবর্তী এলাকার পরিকাঠামো ধ্বংস করেছিল এবং কয়েকটি রাজ্যে বন্যা এনেছিল.