তাঁর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড অথবা মৃত্যুদণ্ড হতে পারে, জানিয়েছে স্থানীয় প্রচার মাধ্যম. পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরি নিসার আলি খান বলেছেন যে, মুশরফের বিচার হতে পারে ২০০৭ সালের ঘটনাবলীর জন্য, যখন তিনি দেশে জরুরী পরিস্থিতি ঘোষণা করেছিলেন এবং সংবিধানের ক্রিয়াকলাপ স্থগিত রেখেছিলেন. মুশরফের বিরুদ্ধে আরও কয়েকটি মামলা রয়েছে, বিশেষ করে, পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেনাজির ভুট্টোকে হত্যা করার.