মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা এজেন্সি ও কেন্দ্রীয় গুপ্তচর বিভাগের প্রাক্তন কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেনের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, জানা গিয়েছে যে, অস্ট্রেলিয়ার বৈদ্যুতিন গোয়েন্দা বিভাগ ২০০৯ সালের আগস্ট মাসে ১৫ দিন ধরে ইউদোইওনো-র মোবাইল টেলিফোনের সক্রিয়তার উপর নজর রেখেছিল. সেই সঙ্গে জানা গিয়েছে যে, অন্ততপক্ষে একটি টেলিফোন-কথাবার্তা আড়ি পেতে রেকর্ড করা হয়েছিল. রাষ্ট্রপতির টেলিফোন ছাড়া তাঁর স্ত্রী, ইন্দোনেশিয়ার প্রাক্তন উপ-রাষ্ট্রপতি, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রেস-সেক্রেটারি, নিরাপত্তা মন্ত্রী এবং তথ্যমন্ত্রীর টেলিফোন-আলাপ আড়ি পেতে শোনা হয়েছিল.