তাঁর কথামতো, “জেনেভা শহরে ১০ই নভেম্বর “ছয় পক্ষের” পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান ও ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী মোহাম্মেদ জাভেদ জারিফ যে আলোচনা করেছেন, তাতে বহু বছরের মধ্যে প্রথমবার দুই পক্ষই শুধু নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করে নি, যা বহু ক্ষেত্রেই এক নয়, কিন্তু কাছে আসার রাস্তাও খুঁজেছে. আর সেই ধরনের বিন্দু খুঁজে পাওয়া গিয়েছে, আর নীতিগত ভাবে যে সমস্ত প্রশ্নের সমাধান করা দরকার তা নিয়েও কোন বিরোধ নেই”, বলেছেন লাভরভ. তিনি আহ্বান করেছেন, “এবারে আর ইরানের নিরস্ত্রীকরণের নিয়ম ভঙ্গের উদাহরণ না খুঁজে ও কৃত্রিম ভাবে বাড়তি বিষয় যোগ করে সন্দেহের অবসান করা দরকার ও সমস্যাকে সমাধান করার দরকার রয়েছে”.