আরব দেশগুলির গ্রুপ এর-রিয়াদের বদলে নতুন প্রার্থী প্রস্তাব করার জন্য প্রখর পরামর্শ চালাচ্ছে. এখন মুখ্য প্রার্থী হিসেবে নাম করা হচ্ছে জর্ডানের. রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ অ্যাসেম্বলি-কে এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে গোপন ভোটদানের মাধ্যমে. যার তারিখ এখনও নির্ধারণ করা হয় নি. জর্ডান সমর্থন পেলে নিজের ইতিহাসে তৃতীয় বার রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে অন্তর্ভুক্ত হবে. আগে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন সৌদ আরবের কাছ থেকে চিঠি পেয়েছেন, যাতে সৌদি আরব ২০১৪-২০১৫ সালে নিরাপত্তা পরিষদে আসন গ্রহণে অস্বীকার করেছে. এ পদক্ষেপের ব্যাখ্যা হিসেবে চিঠির সাথে দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি যুক্ত করা হয়েছে, যাতে উল্লেখ করা হয়েছে যে, নিরাপত্তা পরিষদ সিরিয়ায় সঙ্ঘর্ষ এবং প্যালেস্টাইনী প্রশ্ন মীমাংসায় সহায়তা করতে সক্ষম নয় বলে দেখা গিয়েছে.