“আল-আরাবিয়া” টেলি-চ্যানেলের তথ্য অনুযায়ী, দুজন লিবিয়াবাসী নিহত এবং ২০ জনের উপর আহত হয়েছে. ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে শান্তিপূর্ণ বাসিন্দারাও আছে, যারা গুলি-বিনিময়ের মাঝে পড়েছিল. মুয়ম্মার গদ্দাফির শাসনের উত্খাতের পরে লিবিয়ায় স্থিতিশীল সরকার গঠন করা সম্ভব হচ্ছে না. ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় শাসন ক্ষমতা প্রকৃতপক্ষে রয়েছে সশস্ত্র দলগুলির হাতে, যারা এক সময়ে একক ফ্রন্টে সংগ্রাম করেছিল, কিন্তু বিপ্লবের বিজয়ের পরে তারা পরস্পরের বিরুদ্ধে লড়াই শুরু করে.