নভি পিল্লাই আহ্বান করেছেন প্রত্যেক আলাদা ঘটনাকে স্বাধীন ভাবে তদন্ত করার ও তিনি গণ ভাবে মৃত্যুদণ্ড ঘোষণার নিন্দা করেছেন.

আগে জানানো হয়েছিল যে, বাংলাদেশের আদালত ১৫২ জন সৈনিকের মৃত্যুদণ্ড ঘোষণা করেছিল.

২০০৯ সালের ২৫শে ফেব্রুয়ারী বাংলাদেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর সাধারণ সৈন্যরা ঢাকা শহরে কেন্দ্রীয় দপ্তর দখল করে অফিসারদের হত্যা করতে শুরু করেছিল, সেই দিনে ৭৪জন নিহত হয়েছিল. পরের দিনই এই অভ্যুত্থান যারা করেছিল, তারা আত্মসমর্পণ করেছিল.