এ সম্বন্ধে বৃহস্পতিবার জানিয়েছে “ফার্স” সংবাদ এজেন্সি. তার তথ্য অনুযায়ী, বুধবার সন্ধ্যায় তত্সংক্রান্ত বিবৃতি দিয়েছেন ইরানের তৈল-মন্ত্রী বিজান নামদার জাঙ্গেনে. তেহেরানে কার্বন-যৌগ সংক্রান্ত যে আন্তর্জাতিক সম্মেলন চলছে, তাতে জাঙ্গেনে বলেন, “পাকিস্তানে গ্যাস সরবরাহের চুক্তি, খুব সম্ভবত, বাতিল করা হবে”. ইরান সরকারের দ্বারা এমন চাঞ্চল্যকর সিদ্ধান্তের সম্ভাব্য গ্রহণের কারণ মন্ত্রী বলেন নি. ইরানের তরফের ১১০০ কিলোমিটার দীর্ঘ পাইপলাইনের অংশ বহুকাল হল তৈরি হয়ে গিয়েছে. এদিকে পাকিস্তানের ভূভাগে এ কাজ এমনকি শুরুও হয় নি. পাকিস্তানের সরকার কারণ হিসেবে দেশের আর্থিক সঙ্কটের কথা উল্লেখ করেছে. ভারত কোনো কারণ ব্যাখ্যা না করে এ প্রকল্পে অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকার কথা বহু আগেই ঘোষণা করেছে. সংবাদ এজেন্সি “ফার্স” উল্লেখ করেছে যে, ইসলামাবাদের তরফ থেকে, যার অতি তীক্ষ্ণভাবে জ্বালানীর প্রয়োজন, এ প্রকল্পের বাস্তবায়নে গড়িমসি করার কারণ, সম্ভবত, শুধু জটিল অর্থনৈতিক পরিস্থিতিই নয়, ওয়াশিংটনের চাপও, যে পাকিস্তানের কাছে দাবি করছে ইস্লামিক প্রজাতন্ত্রের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞায় যোগ দিতে.