বিদ্যুত্ কেন্দ্রে আগে বসানো এ ধরণের তিনটি ব্যবস্থার মধ্যে দুটি এখন কাজ করছে. এ তিনটি লাইন ট্রিটিয়াম ছাড়া ৬২ ধরণের তেজষ্ক্রিয় বস্তু থেকে জল পরিষ্কার করবে. পরিষ্কারের পরে জল আংশিকভাবে আবার দুর্ঘটনাগ্রস্ত রিয়াক্টরে পাঠানো হবে তা ঠাণ্ডা করার জন্য. এই “ফুকুসিমা-১” পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রে এখন ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টনেরও বেশি তেজষ্ক্রিয় ও পরিশোধিত জল জমা হয়েছে – বিশেষ আধারে, এবং তাছাড়া ভূগর্ভস্থ এলাকায় ও জল-নিষ্কাশন ব্যবস্থায়, যা সেখানে গিয়ে পড়ছে ক্ষতিগ্রস্ত রিয়াক্টরে দেখা দেওয়া ফুটো থেকে. প্রতিদিন তাতে যুক্ত হচ্ছে প্রায় ৪০০ টন মাটির স্তরের জল. ঐ পরিমাণ মাটির স্তরের জল সমুদ্রে গিয়ে পড়ছে, যাতে তেজষ্ক্রিয় কণিকা রয়েছে. পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রে তেজষ্ক্রিয় জলের সম্পূর্ণ পরিশোধন ২০১৫ সালের মার্চ মাসের শেষ নাগাদ শেষ হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে.