দেশের পশ্চিমাঞ্চলে নগরকান্ডা শহরে পুলিশ মিছিলকারীদের উপর গুলি চালিয়েছে, কারণ তার আগে মিছিলকারীরা একটি স্থানীয় বাজারে ভাঙচুর চালিয়েছে এবং পুলিশের উপর পাথর বর্ষণ করে. ফলে অন্ততপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে. সঙ্ঘর্ষের এলাকায় কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত পুলিশ বাহিনী পাঠাচ্ছে. প্রতিবাদ আন্দোলনের উদ্যোক্তা বাংলাদেশ ন্যাশানালিস্ট পার্টি এবং তার সহযোগী ইস্লামপন্থীরা. বি.এন.পি-র মুখ্য দাবি – সরকারের পদত্যাগ এবং দেশে শাসন ক্ষমতা প্রাকনির্বাচনী কালে "নিরপেক্ষ" সাময়িক সরকারের হাতে সমর্পণ. সরকার নির্বাচন আয়োজনের সময়ে সমস্ত পার্টির মন্ত্রী-পরিষদ গঠনের পরিকল্পনা করছে. বিরোধীপক্ষ এ পরিকল্পনা নাকচ করেছে.