এ সম্বন্ধে সামরিক সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে এন.ডি.টি.ভি টেলি-চ্যানেল. টেলি-চ্যানেলের তথ্য অনুযায়ী, গোলা-গুলি বর্ষণ করা হয় রাইফেল, মর্টার ও গ্রেনেড-থ্রোয়ার থেকে সীমানার ৫০টি অংশে. পাকিস্তানী পক্ষের প্রতিক্রিয়া এখনও জানা যায় নি. ভারতের প্রচার মাধ্যম উল্লেখ করেছে যে, সম্প্রতিকালে সশস্ত্র প্ররোচনা চালানো হচ্ছে ভারত ও পাকিস্তানের বাহিনীকে পৃথক করা নিয়ন্ত্রণ রেখায় নয়, বরং তার দক্ষিণে আন্তর্জাতিক সীমানায়, যা ভারতের কাশ্মীর ও পাকিস্তানের পাঞ্জাব রাজ্যের মাঝে অবস্থিত. ১৮ই অক্টোবর থেকে নিয়ন্ত্রণ রেখায় গুলি বর্ষণ হচ্ছে না. পাকিস্তানের পক্ষ থেকে গুলি বর্ষণ কাশ্মীরের সাম্বা জেলার বহু লোককে সীমানার কাছের গ্রাম ছেড়ে যেতে বাধ্য করেছে. টেলি-চ্যানেলের তথ্য অনুযায়ী, গোলা-গুলি বর্ষণের জন্য দু দেশের সামরিক অধিনায়কমন্ডলীর প্রতিনিধিদের আলাপ-আলোচনা স্থগিত রাখা হয়েছে.