এই বৈঠকের শেষে বর্ডার ডিফেন্স কো-অপারেশেন চুক্তি হওয়ার কথা, যার দৌলতে দুই দেশের সীমান্ত বিভেদ মেটানো যাবে.

সফরকালে ভারতীয় ও চীনা ব্যবসাদারদেরও বৈঠক হবে. তারা দুই দেশের নেতৃবৃন্দের কাছে তাদের কার্যমুলক প্রস্তাবগুলি পেশ করতে চান. ইতিপূর্বে বেজিং ও নয়াদিল্লি ২০১৫ সালে পারস্পরিক পণ্য আবর্তণ ১০ হাজার কোটি ডলারে পৌঁছানোর ব্যাপারে সম্মত হয়েছিল.