এ আইন অনুযায়ী রাষ্ট্রীয় সংস্থার জন্য অর্থ বরাদ্দ করা হবে ২০১৪ সালের ১৫ই জানুয়ারী পর্যন্ত এবং ঋণ গ্রহণের মেয়াদ বাড়ানো হচ্ছে ৭ই ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত. তাছাড়া, অনুমান করা হচ্ছে যে, উভয় কক্ষের প্রতিনিধিরা আর্থিক সংস্কার সম্বন্ধে আলাপ-আলোচনা চালাবে এবং কংগ্রেসকে তার ফলাফল জানাবে ১৩ই ডিসেম্বরের মধ্যে. গত বুধবার মার্কিনী কংগ্রেসের নেতারা অবশেষে রাষ্ট্রীয় ঋণের সীমা বৃদ্ধি সম্পর্কে সমঝোতায় এসেছে. বিশিষ্ট মার্কিনী ব্যবসায়ী এবং পৃথিবীর বৃহত্তম অর্থ-বিনিয়োগকারী ওয়ারেন বাফেট বুধবার কংগ্রেস সদস্যদের সমঝোতায় আসায় অক্ষমতাকে “ব্যাপক ক্ষতির রাজনৈতিক অস্ত্র” বলে অভিহিত করেন, যে অস্ত্র ব্যবহার করা উচিত্ নয়. বিনিয়োগকারী “সি.এন.বি.সি”-কে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেন যে, কংগ্রেস যদি “২৩৭ বছরের ভাল ব্যবহারের সময়ের” ইতি টানে, তাহলে এ হবে “বিশুদ্ধ নির্বুদ্ধিতার” পরিচয়.