রাশিয়ার বিশিষ্ট আইনবিদ মিখাইল বার্শেভস্কি-কে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে কূটনীতিজ্ঞ উল্লেখ করেন যে, আন্তর্জাতিক বিধানে বাধ্যতামূলক পালনের এবং তা লঙ্ঘনের জন্য শাস্তির ব্যবস্থা নেই, যা রাষ্ট্রের জাতীয় অধিকারের ক্ষেত্রে বৈশিষ্ট্যমূলক. তবে, লাভরোভের কথায়, এ বৈশিষ্ট্য “স্বাভাবিকভাবেই দেখা দিয়েছে রাষ্ট্রগুলির সার্বভৌম সাম্যের মূলনীতি থেকে”. লাভরোভ উল্লেখ করেন, “রাষ্ট্রগুলি নিজেদের অধিকারে সমান, আর তাই তাদের বিরুদ্ধে কোনো নিয়ন্ত্রণ অথবা বাধ্যতামূলক ব্যবস্থা গঠনের জন্য তাদের সম্মতি প্রয়োজন”. তিনি আরও বলেন, “আর যদি বল-প্রয়োগের মতো আন্তর্জাতিক বিধানের বুনিয়াদী মূলনীতির কথা ওঠে, তাহলে এ বিষয়ে সম্মত না হয়ে পারা যায় না যে, সিরিয়াকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি আবার এ বিষয়কে অতি জরুরী বিষয়ের পর্যায়ে উন্নীত করেছে”. লাভরোভ মনে করিয়ে দেন যে, সময় সময় কিছু কিছু দেশ নিজের স্বার্থের দ্বারা পরিচালিত হয়ে বল-প্রয়োগ না করার সাধারণ মূলনীতিতে ব্যতিক্রম খুঁজে বার করার চেষ্টা করছে. তিনি উল্লেখ করেন, “সম্প্রতি আমরা কোনো কোনো এলাকায় নিজস্ব স্বার্থ সিদ্ধির উদ্দেশ্যে সামরিক বল প্রয়োগের গ্রহণযোগ্যতা সম্বন্ধে উদ্বেগজনক বিবৃতি শুনতে পেয়েছি”. এটা বিপজ্জনক পথ, যা আধুনিক আন্তর্জাতিক সম্পর্কের স্থাপত্যের ভিত্তিকেই ক্ষুণ্ণ করবে, জোর দিয়ে বলেন লাভরোভ ইন্টারভিউতে, যা প্রকাশ করেছে “রস্সিইস্কায়া গাজেতা” পত্রিকা.