জি টিভি জানিয়েছে, যে ঐ দূর্গামন্দিরের কাছে ১১৫ জনের জীবনাবসান হয়েছে. জি টিভি আরও জানিয়েছে, যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ চৌহান বিশেষ কমিশন গঠন করেছেন ঘটনাটির তদন্ত করার জন্য. কমিশন মঙ্গলবারেই কাজে নেমেছে. তারা স্থানীয় আমলা ও পুলিশের বিরুদ্ধে আনা অবহেলা ও দুর্নীতির অসংখ্য অভিযোগগুলির তদন্ত করবে. কিছু প্রত্যক্ষদর্শী জোর দিয়ে বলছে, যে পুলিশেরই একাংশ গুজব ছড়িয়েছিল, যে ভীড়ের ভারে শীঘ্রই সেতুটি ভেঙে পড়বে, যার ফলেই ভীড়ের মধ্যে ঠেলাঠেলি শুরু হয়েছিল. পুলিশের বিরুদ্ধে এই অভিযোগও দাখিল করা হয়েছে, যে তারা নিহত ও আহতদের দেহ সেতু থেকে নদীতে ছুঁড়ে ফেলছিল. স্বাভাবিকভাবেই পুলিশ এই সব অভিযোগ অস্বীকার করছে. স্বপক্ষে তারা বলছে, যে “সেখানে কর্মরত সব পুলিশকর্মীই নিহত ও আহতদের পুত্র, ভাই বা পিতা.”