পুতিন খুশী যে, তাঁর সিরিয়ার পরিস্থিতি নিয়ে নিয়ন্ত্রণের অবস্থান মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারক ওবামার অবস্থানের সঙ্গে এক হয়েছে. তিনি কিন্তু একমত হতে পারেন নি যে, রাশিয়ার পক্ষ থেকে সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্রকে নিয়ে উদ্যোগ ওবামাকে আঘাত হানা থেকে নিরস্ত হয়ে “নিজের মুখরক্ষা করতে” সহায়তা করেছে বলে. এই প্রসঙ্গে পুতিনের পক্ষে এখনও বোঝা সম্ভব হয় নি যে, কেন সিরিয়াতে “মন্দকে শাস্তি” দিতে হবে: “সেখানে মন্দটা কি? বাশার আসাদের পরিবার যে, গত চল্লিশ বছর ধরেই ক্ষমতায় আছে সেটা? সেখানে গণতন্ত্র নেই? আমেরিকার রাজনৈতিক মহলের ধারণা অনুযায়ী – নেই. সেই সৌদী আরবেও তো বলা হয়ে থাকে যে, নেই. আর এটার সঙ্গে সহমত না হওয়াটাও কঠিন. কিন্তু তাকে তো কেউ বোমা মারতে যাচ্ছে না”. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি মনে করিয়ে দিয়েছেন য়ে, ইজিপ্টের পরিস্থিতিতেও বদল হয়েছে, সেখানে স্বল্প সময় সব শান্ত থাকার পরে আবার গোলমাল শুরু হয়েছে. “এমন দেশ ও এলাকা রয়েছে, বলা যেতে পারে বিশ্বের পুরো একেকটা এলাকাই – যেখানে লোকেরা ইউরোপ বা আমেরিকার গণতন্ত্রের মতো করে থাকতেই পারে না. সেখানে সমাজ অন্য রকমের, অন্য রকমের ঐতিহ্যও”, - নির্দেশ করেছেন পুতিন. তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, লিবিয়াতে সেই অনুপ্রবেশের কথাও, “সেখানেও নাকি গণতন্ত্রের জন্য লড়াই হয়েছিল”. আর এখন সেখানে কোন রকমের গণতন্ত্রই নেই, আর প্রত্যেকেই প্রত্যেকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে, তাছাড়া, সেখানে আমেরিকার রাষ্ট্রদূতকেও হত্যা করা হয়েছে, - এই ভাবেই রুশ রাষ্ট্রপতি যুদ্ধ পরবর্তী লিবিয়ার পরিস্থিতিকে বর্ণনা করেছেন.