মার্কিনী “ফক্স নিউজ” টেলি-চ্যানেলকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে তিনি বলেন যে, এ মাসে জেনেভায় রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মাঝে সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র সংক্রান্ত অর্জিত সমঝোতা বাস্তবায়নের বাধ্যবাধকতা তিনি গ্রহণ করছেন. দামাস্কাস এ পদক্ষেপ গ্রহণে সম্মত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ক্রিয়াকলাপের হুমকির জন্য নয়, বরং রাশিয়ার উদ্যোগে সাড়া দেওয়ার জন্য, জোর দিয়ে বলেন আসদ. তিনি সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্রের অস্তিত্ব স্বীকার করেন, এবং বলেন যে, তিনি তা সেই সব রাষ্ট্রের হাতে দিতে প্রস্তুত, যারা এতে রাজি হবে, তবে তাঁর কথায়, এ অস্ত্র ধ্বংস করার প্রক্রিয়া প্রতিবেশের জন্য বিপুল ক্ষতির ঝুঁকি রয়েছে.রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংসের জন্য প্রয়োজন এক বছর এবং ১০০ কোটি ডলার, জানান আসদ. তিনি তাঁর আগেকার এ বিবৃতি সমর্থন করেছেন যে, সরকারী বাহিনী রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করে নি. রাষ্ট্রপতির কথায়, দামাস্কাসের হাতে প্রমাণ আছে যে, ২১শে আগস্ট দামাস্কাসের উপকণ্ঠে রাসায়নিক অস্ত্রের আক্রমণের সময় সন্ত্রাসবাদী দলগুলি জারিন ব্যবহার করেছিল, এ সব প্রমাণ সিরিয়ার পক্ষ রাশিয়াকে হস্তান্তর করেছে. উল্লেখ করেন তিনি.