কোনো খুঁটিনাটি তিনি জানান নি. এর প্রাক্কালে রিয়াবকোভ বহু ঘন্টা ধরে আলাপ-আলোচনা করেন সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়ালিদ মুয়াল্লেমের সাথে, যাতে, বিশেষ করে, আলোচিত হয় সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্পর্কে রুশ-মার্কিন পরিকল্পনা. রিয়াবকোভের কথায়, এ সাক্ষাত্ ছিল গঠনমূলক. সিরিয়ার পক্ষ রাসায়নিক অস্ত্র নিষেধ সংক্রান্ত সংস্থার কাছে নিজের রাসায়নিক অস্ত্র সম্বন্ধিত তথ্য হস্তান্তর করা সম্পর্কে পূর্ণ দায়িত্বের সাথে অগ্রসর হচ্ছে. রিয়াবকোভ আরও জানান যে, সিরিয়ার কর্তৃপক্ষ সশস্ত্র বিরোধীপক্ষের দ্বারা রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের নতুন সাক্ষ্য-প্রমাণ মস্কোকে দিয়েছে.