ইস্লামপন্থীদের মতে, এইভাবে তারা মোবাইল অপারেটরদের ক্ষতি করতে পারে, যাদের কারা মুর্সিকে ক্ষমতাচ্যুত করায় জড়িত বলে বিবেচনা করে. বিরোধীরা তাছাড়া, নিজেদের সমর্থকদের আহ্বান জানিয়েছে সর জমা না দেওয়ার এবং দেশে শাসন ক্ষমতা পরিবর্তন সমর্থন করা টেলি-চ্যানেলের অনুষ্ঠান না দেখার. ৩রা জুলাই সেনাবাহিনীর দ্বারা মুহাম্মেদ মুর্সিকে শাসন ক্ষমতা থেকে অপসারণের পরে মিশরের সমাজ দু ভাগে বিভক্ত হয়: এক পক্ষ সমর্থন করছে উত্খাত রাষ্ট্রপতিকে, অন্য পক্ষ – সেনাবাহিনীকে. প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির সমর্থক ও তাদের বিরোধীদের মাঝে গ্রীষ্মকালে নিয়মিত সঙ্ঘর্ষ ঘটেছে কায়রো-তে এবং মিশরের অন্যান্য শহরে, যার ফলে বহুসংখ্যক লোক নিহত হয়েছে.