২০১১ সালে পাকিস্তানের ঐ চিকিত্সক ‘আল-কায়িদা’র শিখন্ডী ওসামা বিন-লাদিনকে খুঁজে বের করে তাকে খতম করার জন্য মার্কিনী গুপ্তচর বিভাগের অভিযানে অংশ নিয়েছিলেন.

মার্কিনী সংবাদমাধ্যমজানাচ্ছে, যে ‘সিআইএ’ আফ্রিদিকে নির্দেশ দিয়েছিল, পোলিও’র টীকা দেওয়ার অজুহাতে সেই বাড়িতে ঢোকার, যেখানে তারা অনুমান করছিল, যে বেন-লাদিন লুকিয়ে আছে. দরকার ছিল তার পরিবারের সদস্যদের ডিএনকে’র নমুনা নেওয়ার, যাতে ২০১০ সালে বস্টনে গত হওয়া বেন-লাদিনের বোনের ডিএনকে’র সাথে তুলনা করা যায়. অবশেষে ২০১১ সালের ২রা মে আমেরিকার বিশেষ বাহিনী পৃথিবীর এক নম্বর সন্ত্রাসবাদী হিসাবে চিহ্নিত বেন-লাদিনকে খতম করেছিল.

পাকিস্তানের আদালত গত বছর শাকিল আফ্রিদিকে দেশের নাগরিকদের ভুঁয়ো টীকা দেওয়ার অভিযোগে অপরাধী সাব্যস্ত করে ৩৩ বছরের কারাদন্ড দিয়েছিল.