সিভিরাদ্ভিনস্কের ‘জ্ভিয়োজদোচকা’ জাহাজ মেরামত কারখানার কর্মীরা আপাতত মুম্বইয়ে রয়েছেন. ঐ কারখানাতেই ‘সিন্ধুরক্ষকে’র মেরামত ও আধুনিকীকরণ হয়েছিল. এই মুহুর্তে তলিয়ে যাওয়া নাবিকদের মৃতদেহগুলি খুঁজে বার করার কাজ চলছে. সেই কাজ শেয হওয়ার পরে সাবমেরিনটিকে জলের ওপর তোলা হবে. ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ.কে. অ্যান্টনি বলেছেন, যে বিস্ফোরণের সম্ভাব্য কয়েকটি কারণ বিবেচনাধীন, এমনকি অন্তর্ঘাতের সম্ভাবনাও বাতিল করা যাচ্ছে না. আশা করা যাচ্ছে, যে ভারতীয় সামরিক নৌবাহিনীর বিশেষ কমিশন এক মাসের মধ্যেই দুর্ঘটনার কারণ সম্পর্কে অবহিত করবে.