এ সম্বন্ধে ওয়াশিংটনে এক ব্রিফিংয়ে বলেছেন পররাষ্ট্র বিভাগের প্রতিনিধি জেন প্সাকি. তিনি সঠিক করে বলেন, “এর মধ্যে থাকবে প্রত্যক্ষদর্শীদের সাক্ষ্য, পর্যবেক্ষণ মাধ্যমের তথ্য, উন্মুক্ত তথ্য উত্স অধ্যয়ন, ল্যাবরেটারির বিশ্লেষণ”. প্সাকি-র কথায়, সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের নতুন খবর এখনও সমর্থিত হয় নি.