সেখানে তিনি গৃহবন্দী থাকবেন, দেশের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে “রয়টার” সংবাদ এজেন্সি. কায়রোর আদালত গত বুধবার মিশরের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির উপর থেকে দূর্নীতির শেষ অভিযোগ তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতিকে জেলে আরও রাখার কোনো ভিত্তি পায় নি. মিশরের প্রধান অভিশংসক দপ্তর জানিয়েছে যে, তাঁর মুক্তির সিদ্ধান্তে আপীল করবে না.