খবরে প্রকাশ, যে বোর্নো জেলার সদর-শহর মাইডুগুরি থেকে ৮৫ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিত পুলিশী থানা ও সেনাচৌকির ওপর আক্রমণ করেছিল একদল সশস্ত্র লোক. অন্য আর এক দল হামলা করেছিল বসতিপূর্ণ এলাকায়. নিরাপত্তারক্ষীরা আক্রমণ প্রতিহত করতে সমর্থ হয়েছে, তবে কতজন জঙ্গীকে খতম করা সম্ভব হয়েছে, সেই সম্পর্কে কিছু জানানো হয়নি.

আফ্রিকা মহাদেশের বৃহত্তম জনসংখ্যার দেশ নাইজেরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে মুলতঃ মুসলমানদের বসবাস. ওখানে ‘বোকো হারাম’ নামক চরমপন্থী গোষ্ঠীর প্রবল প্রতিপত্তি, যে গোষ্ঠীর লোকেরা গোটা দেশের ভূখন্ডে শরিয়তি আইনকানুন জারি করতে ও নাইজেরিয়ায় প্রবর্তিত ধর্মনিরপেক্ষ প্রগতিশীল শিক্ষাব্যবস্থা সমূলে উত্পাটন করতে চায়.

নাইজেরিয়ায় যে ঘন ঘন সন্ত্রাসকান্ড ঘটে, তার অধিকাংশেরই সংগঠক এই ‘বোকো হারাম’ গোষ্ঠী.