পুলিশ সূত্রের খবর, যে দেশে এক হাজারেরও বেশি লোককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, যার মধ্যে শুধুমাত্র কায়রোতেই ৫৫৮ জনকে. জানা গেছে, যে সংঘর্ষরত উভয়পক্ষই আগ্নেয়াস্ত্র প্রয়োগ করেছে. ‘মুসলমান ব্রাদারহুড’ পার্টি অন্যায়ভাবে সেনাবাহিনীর দ্বারা রাষ্ট্রপতিকে ক্ষমতাচ্যুত করার প্রতিবাদে প্রকাশ্য আন্দোলনের মেয়াদ আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর কথা ঘোষণা করায় অস্থিরতা তীব্রতর হওয়ার আশঙ্কা বাড়ছে.

‘মুসলমান ব্রাদারহুড’ ও তাদের শরিকরা ‘বৈধতার দাবীতে জাতীয় মোর্চা’ নামক একটি সংগঠনের জন্ম দিয়েছে, যারা খোলাখুলি বলছে, যে “রক্তপাতনে স্বাধীনতার বৃক্ষ মহীরূহে পরিণত হবে”.