বলা হয়েছে মিশরে হিংসার নতুন ঢেউ উপলক্ষে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মন্তব্যে. দলিলে উল্লেখ করা হয়েছে যে, “গণতান্ত্রিক নবীকরণ ক্রমবিকাশ করা এবং ব্যাপক সংলাপ ও জাতীয় সম্মতির ভিত্তিতে রাজনৈতিক প্রক্রিয়া পুনরারম্ভ করার” মাধ্যমে সমস্ত মিশরবাসীর স্বার্থে রূপান্তর সাধন করার পক্ষে রাশিয়া মত প্রকাশ করছে.গত বুধবার মিশরের নিরাপত্তা বাহিনী মিশরের দুটি স্কোয়ার “ভাই মুসলমান” ইস্লামিক আন্দোলন ও ক্ষমতাচ্যুত রাষ্ট্রপতি মুর্সির পক্ষসমর্থকদের হাত থেকে মুক্ত করার অভিযান চালিয়েছে. এ অভিযান বিরোধীপক্ষ ও শৃঙ্খলা রক্ষীদের মাঝে সঙ্ঘর্ষে পরিণত হয়, শেষ প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ২৭৮ জন নিহত হয় ও হাজারেরও বেশি লোক আহত হয়.ফলে মিশরের সামরিক কর্তৃপক্ষ দেশে এক মাসের জন্য জরুরী পরিস্থিতি ঘোষণা করে, রাজধানীতে এবং বড় শহরগুলিতে কার্ফিউ জারি করে. মিশরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জানানো হয়েছে যে, “ভাই মুসলমান” আন্দোলনের আটজন নেতাকে, সেই সঙ্গে “মুক্তি ও ন্যায়” পার্টির উপ-সভাপতি ইসাম আরিয়ান-কে আটক করা হয়েছে. নিজের তরফ থেকে মিশরের উপ-রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ এল-বারাদেই পদত্যাগ করেছেন, সামরিক কর্তৃপক্ষের ক্রিয়াকলাপকে অতি কঠোর বলে অভিহিত করে. রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন বলেছেন যে, আলাপ-আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার বদলে বল প্রয়োগ করা সম্পর্কে মিশরের কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তে হতাশ হয়েছে. মিশরে বল প্রয়োগের তীব্র নিন্দা করে মত প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন এবং অন্যান্য পশ্চিমী দেশ. তুরস্ক মিশরের ঘটনাকে হত্যাকাণ্ড বলে অভিহিত করেছে এবং ইরান মিশরে ক্রমবর্ধমান গৃহযুদ্ধের বিপদের কথা ঘোষণা করেছে.