এ সম্বন্ধে আস্তানা শহরে এক ব্রিফিংয়ে জানিয়েছেন কাজাখস্তানের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী কাইরাত সারিবাই. তিনি যোগ করে আরও বলেন যে, আন্তর্জাতিক মধ্যস্থ “ছয় দেশের” (রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য পাঁচটি দেশ ও জার্মানি) একসারি সদস্যও এ প্রস্তাবে সদর্থক মনোভাব প্রকাশ করেছেন. উপ-মন্ত্রী আরও বলেন যে, ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে আলাপ-আলোচনা কাজাখস্তান দুবার আয়োজন করেছে, এবং তা চালিয়ে যেতে ইচ্ছুক. সারিবাই আশা করেন যে, ইরানে সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পরে তেহেরান এবং “ছয় দেশ” ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে আলাপ-আলোচনার নতুন জায়গা নির্ধারণ করবে. উপ-মন্ত্রী যোগ করে বলেন যে, কাজাখস্তানের রাষ্ট্রপতি নুরসুলতান নজরবায়েভের সাম্প্রতিক ইরান সফরের সময় ইরানের নতুন রাষ্ট্রপতি হাসান রৌহানির সাথে যোগাযোগ গড়ে তোলা হয়েছে. উভয় রাষ্ট্রপতি ভবিষ্যতে গঠনমূলক সহযোগিতা চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সমঝোতায় এসেছেন.