এই দলিলে উল্লেখ করা হয়েছে রকেট বিরোধী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে রুশ প্রজাতন্ত্রের সঙ্গে আলোচনায় অগ্রগতির অভাব, অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সমঝোতা, বাণিজ্য, নিরাপত্তা ও মানবাধিকার নিয়ে আলোচনার ক্ষেত্রেও অগ্রগতি না হওয়ার কথা. কার্নি উল্লেখ করেছেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মনে করে দুই দেশের রাষ্ট্রপতিদের মধ্যে আলোচনাকে সেই সময় পর্যন্ত বন্ধ রাখা দরকার, যতক্ষণ না দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে আলোচ্যের বিষয় গুলি আরও ফলপ্রসূ হয়. তাছাড়া, হোয়াইট হাউসের প্রতিনিধি বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন যে, সিআইএ সংস্থার প্রাক্তন কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেনকে সাময়িক রাজনৈতিক আশ্রয় দেওয়া নিয়ে রাশিয়ার সিদ্ধান্ত দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিষয়ে প্রভাব ফেলেছে. এই প্রসঙ্গে কার্নির কথামতো, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ওবামার প্রথম দফায় রাষ্ট্রপতি থাকাকালীণ রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনার ফলে যে সব সাফল্য লাভ করা সম্ভব হয়েছে, তা মূল্য দিয়ে থাকে, তার মধ্যে স্ট্র্যাটেজিক আক্রমণাত্মক অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ নিয়ে চুক্তিও রয়েছে, আফগানিস্তান সংক্রান্ত সহযোগিতা, ইরান ও উত্তর কোরিয়া সংক্রান্ত সহযোগিতার কথাও বলা হয়েছে. কিন্তু হোয়াইট হাউস সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে যে, দ্বিপাক্ষিক শীর্ষ বৈঠকের জন্য এটা যথেষ্ট নয়. হোয়াইট হাউসের বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে যে, রাশিয়ার সঙ্গে সহযোগিতার প্রশ্ন নিয়ে আলোচনা করা হবে ৯ই আগষ্ট ২+২ কাঠামোতে আলোচনার সময়ে, যেখানে ওয়াশিংটনে দুই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রী পর্যায়ে সাক্ষাত্কার হতে চলেছে.