স্থানীয় প্রচার মাধ্যমের উদ্ধৃতি দিয়ে এ সম্বন্ধে জানিয়েছে “রয়টার” সংবাদ এজেন্সি. দেশের প্রধান অভিশংসক বিদেশী কূটনীতিজ্ঞদের ভাই মুসলমান আন্দোলনের এক নেতা খাইরাত এল-শাতেরের সাথে সাক্ষাতের অনুমতি দেন. এ সাক্ষাত্ শুরু হয় স্থানীয় সময় অনুযায়ী, প্রায় মাঝ রাতে এবং তা চলে প্রায় এক ঘণ্টা. সংবাদ এজেন্সির তথ্য অনুযায়ী, বন্দীর সাথে সাক্ষাতের ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোসঙ্ঘ, কাতার ও সংযুক্ত আরব এমীরশাহীর কূটনীতিজ্ঞরা. সংবাদ এজেন্সি “রয়টার” উল্লেখ করেছে যে, কূটনীতিজ্ঞরা সঙ্কট মীমাংসার চেষ্টায় সাক্ষাত্ করছেন বিরোধী পক্ষগুলির সাথে, যে সঙ্কট দেখা দিয়েছে ইস্লামপন্থী রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সিকে শাসন ক্ষমতা থেকে অপসারণের পরে. খাইরাত এল-শাতের হলেন “ভাই মুসলমান” আন্দোলনের সর্বোচ্চ গুরু মোহাম্মেদ বাদিয়া-র সহকারী এবং আন্দোলনের স্ট্র্যাটেজির দায়িত্ব তাঁরই হাতে.