এ সম্বন্ধে শুক্রবার জানিয়েছে “ইতার-তাস” সংবাদ এজেন্সি ব্রাসেলসে কূটনৈতিক উত্সকে উদ্ধৃত করে. উত্স থেকে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, ইউরোসঙ্ঘের দেশগুলি সিরিয়ায় বিরোধী শক্তিগুলিকে অস্ত্র সরবরাহের সমস্যার আলোচনায় ফেরার পরিকল্পনা করছে না, অন্ততপক্ষে – আগস্ট মাসের শেষ পর্যন্ত. ইউরোসঙ্ঘের দেশগুলির পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা ২৮শে মে ব্রাসেলস সাক্ষাতে সিরিয়ায় অস্ত্র সরবরাহে নিষেধাজ্ঞার ব্যবস্থার পুনর্বিবেচনার প্রশ্নে একমতে আসতে পারেন নি. নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হয়েছে ১লা জুন. সে সময় থেকে ইউরোসঙ্ঘের সমস্ত দেশ সিরিয়ায় অস্ত্র সরবরাহের ব্যাপারে স্বতন্ত্রভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণের অধিকার পেয়েছে. তবুও, ইউরোসঙ্ঘের বেশির ভাগ দেশ ঘোষণা করেছে যে, সিরিয়া সঙ্ঘর্ষের এলাকায় অস্ত্র সরবরাহ করবে না. এমন স্থিতি গ্রহণ করেছে অস্ট্রিয়া, জার্মানি, বেলজিয়াম, লাক্সেমবার্গ, ডেনমার্ক, চেকিয়া এবং অন্য একসারি দেশ. নিষেধাজ্ঞা বাতিলের পক্ষসমর্থক – ফ্রান্স ও গ্রেট-বৃটেন সিরিয়ার বিদ্রোহীদের অস্ত্র সরবরাহ শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয় নি.